দেশে ঊর্ধ্বমুখী করোনা, একদিনে বাড়ল শনাক্ত-মৃত্যু

আওয়াজবিডি ডেস্ক
১২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বিকাল ৫:৪৫ সময়

রবিবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৮৭১ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৩০ হাজার ৪১৩ জন।

এর আগে, শনিবার স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, শুক্রবার বিকেল থেকে শনিবার বিকেল পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪৮ জনের মৃত্যুর হয়। তখন মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ায় ২৬ হাজার ৮৮০ জনে।

অধিদফতর আরও জানিয়েছিল, ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৩৮৭ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এ নিয়ে দেশে মোট করোনায় আক্রান্ত হন ১৫ লাখ ২৮ হাজার ৫৪২ জন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর ১৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত একজনের মৃত্যু হয়।

পিয়াল/আওয়াজবিডি

ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে স্থিতিশীলতা রক্ষায় জোর কোয়াড নেতাদের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, দুপুর ৩:০৮ সময়

শুক্রবার হোয়াইট হাউসে কোয়াড্রিলেটারাল সিকিউরিটি ডায়ালগ (কোয়াড) -এর চার সদস্যদেশের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানেই তারা এ ব্যাপারে সম্মত হন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এবারই প্রথমবারের মতো সশরীরে কোয়াডের নেতাদের মধ্যে হওয়া বৈঠকে করোনার টিকা, আঞ্চলিক অবকাঠামো, জলবায়ু পরিবর্তন ও কম্পিউটারপ্রযুক্তিতে ব্যবহৃত সেমিকন্ডাক্টর সরবরাহের বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, ‘আমরা উদার ধারার গণতান্ত্রিক দেশগুলো স্বাধীনতার পক্ষে। আমরা স্বাধীন ও মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল চাই। কারণ, মুক্ত গণতান্ত্রিক পরিবেশেই শক্তিশালী, স্থিতিশীল ও সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়ে উঠতে পারে।’

জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে সুগা বলেন, এই বৈঠকের মাধ্যমে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের মধ্যে সংহতি শক্তিশালী হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, ‘কোয়াডভুক্ত চার প্রধান গণতান্ত্রিক দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার ইতিহাস রয়েছে। আমরা জানি কীভাবে কোনো কিছুর সমাধান করতে হয়। আর আমরা এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণের জন্য প্রস্তুত।’

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কোয়াডভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ চর্চার ওপর জোর দেন।

কোয়াডকে চীনবিরোধী জোট হিসেবে মনে করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র কোয়াডের মাধ্যমে এশিয়ায় নিজের অবস্থান পাকাপোক্ত করতে চায়। এর আগে বেইজিং বলেছে, চীনের আধিপত্য ঠেকাতে এটি মার্কিনদের নতুন চাল।

পিএলএম/আওয়াজবিডি