সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় আরও সাত জনের মৃত্যু

আওয়াজবিডি ডেস্ক
৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, দুপুর ১২:৪৮ সময়

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) সিলেট বিভাগীয় পরিচালকের (স্বাস্থ্য) কার্যালয়ের করোনা-সংক্রান্ত দৈনিক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে ৪২ জন, সুনামগঞ্জে ৪, হবিগঞ্জে ৫ ও মৌলভীবাজারে ২০ জন শনাক্ত হন।

সব মিলে বিভাগে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৩ হাজার ৭৫৭ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ২৮ হাজার ৪২২ জন, সুনামগঞ্জে ৬ হাজার ১৮৪, হবিগঞ্জে ৬ হাজার ৫৫৫ এবং মৌলভীবাজারে ৭ হাজার ৯২১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

এদিকে করোনায় মৃত সাতজনের মধ্যে ছয়জন সিলেট জেলার বাসিন্দা। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন আরো একজন।

বিভাগে করোনায় মারা গেছেন ১ হাজার ১২১ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলার ৮২০ জন, সুনামগঞ্জের ৭২, হবিগঞ্জের ৪৭ এবং মৌলভীবাজারের ৭২ জন রয়েছেন। এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন ১১০ জন।

পিয়াল/আওয়াজবিডি

সিরিয়ায় যুদ্ধ-সংঘাতে সাড়ে তিন লাখের বেশি মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, দুপুর ২:৩৭ সময়

নিহত বেসামরিক নাগরিক এবং যোদ্ধাদের অন্তর্ভুক্ত করে এবং কঠোর পদ্ধতির উপর ভিত্তি করে নিহতদের পুরো নাম, সেই সঙ্গে প্রতিষ্ঠিত তারিখ এবং মৃত্যুর স্থানসহ বিভিন্ন বিষয় উল্লেখ করে শুত্রবার মানবাধিকার কার্যালয় ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনার মিচেল ব্যাচলেট বলেন, আমরা ২০১১ সালের মার্চ ২০২১ সালের মার্চের মধ্যে সিরিয়ায় সংঘর্ষে নিহত তিন লাখ ৫০ হাজার ২০৯ জনের একটি তালিকা তৈরি করেছি।

তিনি বলেন, নিহত প্রতি ১৩ জনের মধ্যে একজন নারী অথবা শিশু। তিনি আরও বলেন, এটি একটি ন্যূনতম যাচাইযোগ্য সংখ্যা নির্দেশ করে এবং অবশ্যই এটাই প্রকৃত হত্যার সংখ্যা নয়। এখানে কম সংখ্যা উঠে এসছে। প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি হওয়ার কথা।

এর আগে ২০১৪ সালের আগস্টে ব্যাচলেট জানান, যুদ্ধ-সংঘাতে কমপক্ষে ১ লাখ ৯১ হাজার ৩৬৯ জন নিহত হয়েছে। একটি সম্পূর্ণ পরিসংখ্যান প্রকাশের জন্য একটি মডেল নিয়ে কাজ করছিল তার কার্যালয়। এগুলো হত্যাকাণ্ডের জন্য জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠায় সহায়তা করবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সবচেয়ে বেশি নিহতের ঘটনা ঘটেছে আলেপ্পোতে। সেখানে সংঘাতে ৫১ হাজার ৭৩১ জন নিহত হয়েছে। তবে মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলছে, সিরিয়ায় যুদ্ধ-সংঘাতে এখন পর্যন্ত ৫ লাখ মানুষ নিহত হয়েছে। ব্রিটিশভিত্তিক এই সংস্থার পরিচালক রামি আবদুল রাহমান বলেন, প্রকৃত সংখ্যা জানানোটা বেশ কঠিন।

পিএলএম/আওয়াজবিডি